এই সময়ে তরুণীদের পছন্দ রঙিন চুল। তবে পার্লারে গিয়ে শুধু চুল রঙিন করলে হবে না, এর বাড়তি যত্নের বিষয়টিও জেনে নিতে হবে। নয়তো আপনার পছন্দের রঙিন চুল নষ্ট হয়ে যেতে পারে। রঙিন চুলের যত্ন নিয়ে এবারের আয়োজন।
কড়া রোদে রং করা চুল সহজেই খারাপ হয়ে যায়। চুলের রঙও হালকা হয়ে যায়। এ ক্ষেত্রে রং করার আগেই আলট্রাভায়োলেট ফিল্টার আছে এমন পণ্য ব্যবহার করতে পারেন চুলে। এটি রোদের হাত থেকে চুলকে রক্ষা করবে। সাঁতার কাটার অভ্যাস থাকলে সাঁতারের পর চুল ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে। রং করা চুলে ব্যবহারের জন্য বিশেষ ধরনের শ্যাম্পু পাওয়া যায়। এমনকি বিশেষ ধরনের কন্ডিশনারও বাজারে পাওয়া যায়; যা চুলের রং ঠিক রেখে পরিষ্কার করে। রং করা চুলের বেলায় মোছার ক্ষেত্রে তোয়ালে হাতে নিয়ে হালকাভাবে মুছে নিন; জোরে ঘষবেন না। জোরে ঘষলে চুলের কিউটিকল নষ্ট হয়ে যাবে, রং হালকা হয়ে যাবে। মাসে অন্তত একবার কন্ডিশনিং ট্রিটমেন্ট করান। চুলের রং ও স্বাস্থ্য বজায় থাকবে।
পরামর্শ
* রং করার আগে রূপ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন। চুলের ধরন বুঝে রং করা না হলে চুল পড়া, চুলকানি বা ত্বকে অ্যালার্জি হতে পারে। চুলে হাইলাইটস করতে চাইলে দুই মাস আগ থেকে মেহেদি ব্যবহার বাদ দিন।
* সপ্তাহে একবার ওয়ার্ম অয়েল ম্যাসাজ করুন। এতে চুল ভালো থাকবে।
* ব্লো ডাই বেশি করবেন না।
* অতিরিক্ত হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করবেন না। চুল থেকে অন্তত ৩ ইঞ্চি দূরত্বে হেয়ার ড্রায়ার ধরবেন।
* বৃষ্টিতে চুল ভিজলে নিস্তেজ ও রুক্ষ হয়ে পড়ে। তাই বৃষ্টিভেজা চুল তাড়াতাড়ি পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলবেন।
* তৈলাক্ত চুলে ঘন কন্ডিশনার ব্যবহার না করে হেয়ার রিনজ ব্যবহার করুন।
* রং করা চুলে স্প্রে করা থেকে বিরত থাকুন।
* এক্সটেনশন করা চুল মোটা দাঁড়ের চিরুনি দিয়ে আঁচড়ান।
চুলের পরিচর্যায় তেল
শরীরের মতো চুলেরও পুষ্টির প্রয়োজন রয়েছে। সঠিক পুষ্টি ও পরিচর্যা না পেলে চুল লম্বা, শক্ত ও স্বাস্থ্যোজ্জ্বল হবে না। আর এ জন্য নিয়ম করে চুলে তেল লাগানো খুবই গুরুত্বপূর্ণ। চুলে কতবার তেল লাগাতে হবে, তা নিয়ে অনেকেই দ্বিধায় পড়ে যান। অনেক সময় দেখা যায়, অতিরিক্ত তেল লাগানোর ফলে আপনার চুল ও মাথার ত্বক বেশি তেলতেলে হয়ে গেছে। তখন সেই তৈলাক্ত চুলে ময়লা ও খুশকি বেশি হয়। তাই চুলের ধরন বুঝে তেল লাগাতে হবে।
শুষ্ক চুল: শুষ্ক চুলে নিয়মিত তেল লাগানো উচিত। সম্ভব না হলে সপ্তাহে অন্তত দু-তিনবার তেল লাগাতে হবে। চুলের গোড়া পর্যন্ত পুষ্টি পৌঁছে দিতে আপনি ক্যাস্ট্রো অয়েল কিংবা নারিকেল তেল দিয়ে গরম ভাপ নিতে পারেন।
তৈলাক্ত চুল: এ ধরনের চুলে প্রতিদিন তেল দিলে চুল আরও বেশি তৈলাক্ত ও আঠালো হয়ে পড়ে। তাই সপ্তাহে একবার তেল লাগিয়ে ভালো মানের শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। ক্যাস্ট্রো অয়েল বা অলিভ অয়েল না লাগানোই ভালো।
সাধারণ চুল: যেহেতু সাধারণ চুলে শুষ্ক বা তৈলাক্ত চুলের চেয়ে সমস্যা কম থাকে, তাই তেল দেওয়ার ক্ষেত্রে তেমন নিয়ম মানতে হয় না। নারিকেল তেল ও অলিভ অয়েল এ চুলের জন্য বেশ উপকারী। সপ্তাহে অন্তত দুবার তেল লাগাতে পারেন।