প্রাকৃতিকভাবেই একটি শিশু বেড়ে ওঠে, বেড়ে ওঠে তার মেধা ও মনন। শিশুর এই মানসিক বিকাশ অনেকখানিই নির্ভর করে তার পরিচর্যার উপর। শিশুর সুষ্ঠু মানসিক বিকাশে অভিভাবকদেরও তাই কিছু দায়িত্ব ও করণীয় আছে।

১. দুষ্টমি করাই শিশুর স্বাভাবিক ধর্ম। তাকে সারাক্ষণ কড়া শাসনের মধ্যে রাখবেন না।

২. সুস্থ ও স্বাভাবিক শিশু স্বভাবতই চঞ্চল। তাকে প্রতিনিয়ত উৎসাহ দিন এবং শক্তি ও সাহস যোগান। অহেতুক ভয় দেখিয়ে তাকে ভীত করে তুলবেন না।

৩. শিশুকে বইয়ের বিভিন্ন ছবি দেখিয়ে গল্প বলুন। তাকে ছবির বই এর বিভিন্ন প্রাণী, ফুল, ফল এবং প্রাকৃতিক জিনিসের নাম, রং চিনিয়ে দিন।

৪. শিশুর মনে সারাক্ষণই নানা প্রশ্ন উঁকি দেয়। তার সকল কৌতুহলী প্রশ্ন এড়িয়ে যাবেন না, উত্তর দিন বুদ্ধি খাটিয়ে। ধমক দিবেন না।

৫. শিশুকে নিয়ে প্রতিদিন কিছুক্ষণের জন্য বেড়াতে বের হোন এবং চারপাশের সবকিছু সম্পর্কে তার সাথে কথা বলুন।

৬. শিশু সঠিক কাজ করলে তাকে প্রশংসা করুন এবং তাকে উৎসাহিত করুন আর ভুল কিছু করলে বকাবকি না করে বা শাস্তি না দিয়ে তাকে ভালভাবে বুঝিয়ে ভুলটি ধরিয়ে দিন।

৭.শিশুকে খুব বেশী পরনির্ভরশীল করবেন না।

৮. শিশুর সামনে ঝগড়া ঝাটি, কান্নাকাটি, জিনিস ছুড়ে শব্দ করা, বকা বা মারধোর করা ইত্যাদি করা থেকে দূরে থাকুন।

৯. লেখাপড়ার পাশাপাশি শিশুকে খেলাধুলা বা অন্যকিছুতে উৎসাহ দিন। তার হাতে পেন্সিল, কাগজ দিয়ে ছবি আঁঁকা শেখান।