চীনের সব মসজিদে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

‘দেশাত্মবোধ জাগাতে’ রমজান মাস চলাকালে দেশটির শীর্ষ ইসলামী সংগঠন ‘চায়না ইসলামিক অ্যাসোসিয়েশন’ এমন নির্দেশনা জারি করেছে বলে বার্তা সংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

সরকার নিয়ন্ত্রিত সংগঠন ‘চায়না ইসলামিক অ্যাসোসিয়েশন’ তাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক চিঠিতে জানিয়েছে, মসজিদের এমন জায়গায় পতাকা উত্তোলন করতে হবে, যা বহুদূর থেকে স্পষ্ট দেখা যায়।

সংগঠনটির চিঠিতে বলা হয়েছে, মসজিদের মতো ধর্মীয় স্থানে পতাকা উত্তোলন করা হলে তাতে জাতীয় ও সামাজিক আদর্শ আরও জোরালোভাবে প্রকাশ পাবে। এতে প্রচার ও প্রসার হবে জাতীয়তাবোধেরও।

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, কমিউনিস্ট পার্টির যে ‘মূল সমাজতান্ত্রিক মূল্যবোধ’, সে বিষয়েও মানুষকে বোঝাবে মসজিদগুলো। ইসলামী ধর্মশাস্ত্র অনুযায়ী অনুসারীদের কাছে তা ব্যাখ্যা করবে, যাতে তা ‘মানুষের মনে গেঁথে যায়’।

ফেব্রুয়ারি থেকে চীনে ধর্মীয় আচার বিষয়ক সংশোধিত নির্দেশিকা জারি হয়েছে। এরপরই চায়না ইসলামিক অ্যাসোসিয়েশন তাদের ওয়েবসাইটে এই চিঠি প্রকাশ করলো। চীনে প্রায় দশটি গোষ্ঠীর অন্তর্গত দুই কোটি মুসলমান রয়েছে।

সমালোচকেরা বলছেন, চীনের শাসক দল এভাবে ধর্মীয় ক্ষেত্রেও নিয়ন্ত্রণ বাড়াতে চাইছে। দেশটির সংবিধান ও আইন বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতে ক্লাস নেওয়ারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে মসজিদগুলোকে। এরইমধ্যে এই নির্দেশ মানতে শুরু করেছে দেশটির বেশ কিছু প্রদেশ। শুধু মসজিদ নয়, অনেক স্থানে গির্জা ও বৌদ্ধ মন্দিরেও জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে।