আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হতে আগ্রহীদের ঋণ খেলাপি সংক্রান্ত তথ্য ব্যাংকের নিজ উদ্যোগে রিটানিং কর্মকর্তাকে দিতে হবে।

এ জন্য মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন আগামী ২৮ নভেম্বর রিটার্নিং অফিসারের কাছ থেকে মনোনয়নপত্র দাখিলকারীর নাম ঠিকানা সংগ্রহ করতে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা ব্যাংকগুলোর প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়। নির্বাচন কমিশনের অনুরোধে কেন্দ্রীয় ব্যাংক এ নির্দেশ দিয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সার্কুলারে বলা হয়েছে, গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশের বিধান অনুসারে ঋণ খেলাপি ব্যক্তি জাতীয় সংসদের সদস্য হওয়ার যোগ্য নন। ফলে তাঁরা জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারেন না। নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলকারী ব্যক্তিদের ঋণ খেলাপি সংক্রান্ত তথ্য সকল তফসিলি ব্যাংক থেকে সরবরাহ করা আবশ্যক।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ২৮ নভেম্বর বিকাল ৫টার পর মনোনয়নপত্র দাখিলকারির নাম, পিতা, মাতা বা স্বামীর নাম ও প্রয়োজনীয় অন্যান্য তথ্য সংশ্নিষ্ট ব্যাংক থেকে নিজ উদ্যোগে সংশ্নিষ্ট রিটার্নিং অফিসের কাছ থেকে সংগ্রহ এবং প্রয়োজনীয় যাচাই বাছাই শেষে তথ্য সরবরাহ করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হল।

এতে আরও বলা হয়েছে, ঋণ খেলাপি সংক্রান্ত তথ্য মনোনয়ন পত্র বাছাইয়ের দিন বা তার আগে সংশ্নিষ্ট রিটার্নিং অফিসারকে প্রদান এবং প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে ব্যাংকের সংশ্নিষ্ট কর্মকর্তাদেরকে মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের সময় রিটার্নিং অফিসারের দপ্তরে উপস্থিত থাকার জন্যও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এ নির্দেশনার সঙ্গে নির্বাচন কমিশন থেকে গত ১২ নভেম্বর জারি করা প্রজ্ঞাপন এবং অর্থমন্ত্রণালয়ে পাঠানো এ সংক্রান্ত চিঠি সংযুক্ত করে দেওয়া হয়েছে।