রাজধানীতে শুরু হলো পাঁচ সপ্তাহের জামদানী উৎসব। ধানমন্ডি ২৭ নম্বরের বেঙ্গল শিল্পালয়ে আয়োজিত এ উৎসব শেষ হবে ১২ অক্টোবর। উৎসবটি যৌথভাবে আয়োজন করেছে বাংলাদেশ জাতীয় কারুশিল্প পরিষদ ও বেঙ্গল ফাউন্ডেশন।
জামদানি আমাদের অহংকার। ঐতিহ্যের ধারক-বাহক। জামদানির অতীত ঐতিহ্য, আভিজাত্য তুলে আনতে জামদানির পুনরুজ্জীবনের লক্ষ্যে রাজধানীতে শুরু হয়েছে জামদানি উৎসব। বাংলাদেশ জাতীয় কারুশিল্প পরিষদ ও বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের যৌথ উদ্যোগে ধানমণ্ডির বেঙ্গল শিল্পালয়ে শুরু হয়েছে ‘ঐতিহ্যের বিনির্মাণ’ শীর্ষক মাসব্যাপী জামদানি উৎসব। বিকালে এ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। বিশেষ অতিথি ছিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী এবং ওয়ার্ল্ড ক্রাফটস কাউন্সিল এশিয়া প্যাসিফিক রিজিয়নের প্রেসিডেন্ট ড. গাদা হিজাউয়ি-কাদুমি। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কারুশিল্প পরিষদের সভাপতি মো. রফিকুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে দুই বছরের কাজের গতিপ্রকৃতি তুলে ধরেন ডিজাইনার চন্দ্র শেখর দে। সঞ্চালনা করেন বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক লুভা নাহিদ চৌধুরী।

প্রদর্শনীতে হারিয়ে যাওয়া বিলুপ্ত প্রায় আদি জামদানির ডিজাইনের অনুসরণে এখনকার জামদানির বয়নশিল্পীরা বয়ন করেছেন। সেখান থেকে প্রদর্শনীতে ৩০টি শাড়ি উপস্থাপন করা হয়েছে। এর পাশাপাশি জামদানির নকশা, পুরনো জামদানিও স্থান পেয়েছে প্রদর্শনীতে। গবেষকদের গবেষণার ওপর ভিত্তি করেই আদি জামদানি নতুন করে বয়নের প্রচেষ্টা হাতে নেয়া হয়। এর সঙ্গে যুক্ত হয় বেঙ্গল ফাউন্ডেশন। সহযোগী প্রতিষ্ঠান হিসেবে রয়েছে আড়ং, কমুদিনী, অরণ্য ও টাঙ্গাইল শাড়ি কুটির। প্রতিদিন দুপুর ১২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।