আবারও আজকে আমার অনলাইন পত্রিকা ‘সোনালি সকাল’ নিয়ে কথা বলতে হচ্ছে।
২০০৮ সালে সেপ্টেম্বর মাসের ১ তারিখ আনুষ্ঠানিকভাবে ‘সোনালি সকাল’ প্রথম যাত্রা শুরু করে। শুরু থেকে এর সম্পাদক এবং প্রকাশক আমি (নিশাত মাসফিকা)। বেশ কয়েকটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকা আমার অনলাইন পোর্টাল নিয়ে ফিচারও করেছিল। জাতীয় দৈনিকগুলোতে আমাকে দেশের প্রথম অনলাইন নারী সম্পাদক হিসেবেও উল্লেখ করে। এবং এই নিয়ে কয়েকটি টিভি চ্যানেলও আমার সাক্ষাৎকার নিয়েছিল।
বারবার আমার অনলাইন পোর্টাল আমার কাছ থেকে হ্যাকড করা হয়েছিল। এবং আমি বারবারই থেমে থাকি নি। এটা আবার উদ্ধার করেছি। এবং ২০১৬ সালে মাননীয় মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এর পরামর্শ অনুযায়ী আমি ‘সোনালি সকাল’ নামটি ঢাকার আগারগাঁও কপিরাইট অফিস থেকে কপিরাইট করে নেই।
আজকে আবার অচেনা নাম্বার থেকে ফোন। ‘সোনালি সকাল’ নামে তিনি অনলাইন পোর্টাল বানাবেন। তাই তার ওয়েব ডেভলপার আমাকে ফোন করে উত্যক্ত বাক্য বিনিময় করছেন। তার ভাষ্যমতে ডোমেইন নাম আমি sonali লিখেছি, সেখানে তারা sonaly লিখবেন। কিন্তু বাংলায় পোর্টালে ‘সোনালি সকাল’-ই লিখবেন। আমার কেন আপত্তি সেটায় তাই সে আমার সাথে উত্যক্ত বাক্য বিনিময় করেছে।
আমি হাজারবার বুঝিয়ে বললাম যে ডোমেইন নেম অনেক বানানে লেখা যায়, কিন্তু বাংলা নাম ‘সোনালি সকাল’ কিছুতেই দিতে পারবেন না। কারণ এটা কপিরাইট করা। এবং সেটা ২০০৮ সাল থেকে আমার সম্পাদনায় প্রকাশিত হচ্ছে। কিন্তু আমি তাকে কিছুতেই বোঝাতে পারলামই না।
সেই সম্পাদক নাকি গত কয়েকদিনধরে ‘সোনালি সকাল’ নামে নিজেকে এর সম্পাদক ও প্রকাশক দাবী করে একটা ব্লগ চালাচ্ছেন।
সম্পাদকের নাম, ঠিকানা, ফোন নাম্বার আমি সংগ্রহ করেছি। আইনগত ব্যবস্থা নিতে হলে আমি তা প্রয়োগ করবো। এব্যাপারে আমার আর কী করণীয় তা পরামর্শ ও সহযোগীতা চাচ্ছি।